তত্ত্বাবধায়ক ছাড়া নির্বাচনে যাবে না জামায়াত

0
Array

তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া কোনো দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী।

রোববার জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয় বলে গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে নিশ্চিত করা হয়। আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অতি সন্নিকটে উল্লেখ করে সভায় বলা হয়, এখনো দেশে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের কোনো পরিবেশ তৈরি হয়নি। দেশে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে বুদ্ধিজীবী মহল ও আন্তর্জাতিক বিশ্বের মতামতকে কোনো রকম তোয়াক্কা না করে সরকার দেশকে একটি অকার্যকর ও ব্যর্থ রাষ্ট্রের দিকে ঠেলে দেয়ার অশুভ চক্রান্তে লিপ্ত হয়েছে। আমরা সরকারকে সুস্পষ্টভাবে জানাতে চাই, জামায়াত তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া কোনো দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না।

‘জামায়াত একটি নির্বাচন মুখী রাজনৈতিক দল। জামায়াত কখনো কোনো প্রহসন ও পাতানো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না। গত ১৫ বছর যাবৎ বর্তমান ফ্যাসিস্ট সরকার জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে আসছে। মানুষ তার সাংবিধানিক গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এ সরকারের আমলে কোনো নির্বাচনই অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়নি।’ সভায় আরো বলেন, বর্তমান স্বৈরাচারী সরকারের জুলুম-নিপীড়ন অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। এই ফ্যাসিস্ট সরকারের আমলে সবচেয়ে বেশি জুলুম-নির্যাতনের শিকার হয়েছে জামায়াত ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের নেতাকর্মীরা।

জামায়াতের লক্ষাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে তাদের ওপর নির্যাতন চালানো হয়েছে। ডা. শফিকুর রহমানকে গত ১২ই ডিসেম্বর রাজধানীর বসুন্ধরা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। সেক্রেটারি জেনারেল অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান, শূরা সদস্য শাহজাহান চৌধুরীকে দুই বছরের অধিক সময় ধরে জেলে আটক রাখা হয়েছে। তারা উচ্চ আদালত থেকে বারবার জামিন লাভ করলেও মুক্তি পাচ্ছেন না। উচ্চ আদালত থেকে তাদেরকে পুনরায় গ্রেপ্তার না করার নির্দেশনা দেয়া সত্ত্বেও তা মানা হচ্ছে না।

অবিলম্বে নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে সংসদ নির্বাচনের দাবি মেনে নিয়ে শফিকুর রহমানসহ সকল রাজবন্দির মুক্তি এবং অন্যায় গ্রেপ্তার, নির্যাতন, হামলা-মামলা বন্ধ করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয় সভায়। সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমান। এতে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন, আমীরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমানসহ গ্রেপ্তারকৃত নেতাকর্মীদের মুক্তি এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বেআইনি ভূমিকার নিন্দা এবং প্রতিবাদও জানানো হয়।

About Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • Click to Chat
  • Click to Chat
  • Click to Chat
  • Click to Chat