ইইউ’র পর্যবেক্ষক দল পাঠানোর ওপর নির্বাচনের বিশ্বাসযোগ্যতা নির্ভর করে না : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

0
Array

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো: শাহরিয়ার আলম বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) তাদের নির্বাচন পর্যবেক্ষক দল পাঠাক বা না পাঠাক নির্বাচনের বিশ্বাসযোগ্যতার ওপর কোনো প্রভাব পড়বে না।

সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, এটাকে অতি সরলীকরণ করে কোনো উপসংহারে আসার সুযোগ নেই।
শাহরিয়ার বলেন, ‘ইউরোপীয় ইউনিয়নের সাথে আমাদের খুব গভীর সম্পর্ক রয়েছে।’
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইইউ’র পক্ষ থেকে কোনো চিঠি পায়নি।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন তাদের কাছ থেকে যে তথ্য পেয়েছে সে বিষয়ে মন্তব্য করবে। বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে কি না, এটি পর্যবেক্ষক পাঠানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য ইইউর একটি শর্ত ছিল বলে আমরা আগে থেকে জানি।

এর আগে বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো: জাহাংগীর আলম বলেছেন, আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে বাজেট স্বল্পতার কারণে ইউরোপীয় ইউনিয়ন তাদের পূর্ণাঙ্গ নির্বাচন পর্যবেক্ষক দল বাংলাদেশে পাঠাবে না।

তিনি বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) তাদের সিদ্ধান্তের বিষয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে একটি ইমেল পেয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘ইইউ জানিয়েছে, তারা ইসির সাথে যোগাযোগ রাখবে। তারা আমাদের দেশে এসে অনেকের সাথে কথা বলেছে। নির্বাচনের সময় তাদের আর্থিক সীমাবদ্ধতা রয়েছে। এ কারণে তারা একটি পূর্ণাঙ্গ নির্বাচন পর্যবেক্ষক দল পাঠাবে না। কিন্তু দেশে এখন একটি ছোট দল রয়েছে। আমাদের দেশে ইইউ’র যারা আছে তারা এটি করবে কি না সে সম্পর্কে কিছু বলেনি।’

আলম আরো বলেন, ইইউ নির্বাচন নিয়ে কোনো উদ্বেগ প্রকাশ করেনি। তারা সিইসির সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রাখবেন বলেও জানান তিনি।

বুধবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) নির্বাচন অনুসন্ধান মিশনের (এক্সএম) সাম্প্রতিক বাংলাদেশ সফরের ফলোআপ হিসেবে একটি চিঠি পেয়েছে নির্বাচন কমিশন।

চলতি বছরের জুলাই মাসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) মিশন নির্বাচন কমিশন ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে একাধিক বৈঠক করেছে।

ফ্যাক্ট-ফাইন্ডিং মিশন থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগে ইউরোপীয় ইউনিয়নের একটি পূর্ণাঙ্গ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ মিশন পাঠানোর বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা ছিল।

ঢাকায় ইইউ মিশনের মতে, নির্বাচন অনুসন্ধান মিশনের মূল উদ্দেশ্য ছিল আসন্ন সংসদ নির্বাচনের জন্য সম্ভাব্য ইইউ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ মিশনের ‘পরামর্শ, উপযোগিতা ও সম্ভাব্যতা’ মূল্যায়ন করা।

এই মিশনের কাজ ছিল প্রধান নির্বাচন পর্যবেক্ষণ মিশনের পরিধি, পরিকল্পনা, বরাদ্দ, রসদ ও নিরাপত্তা মূল্যায়ন করা।
ইইউ প্রতিনিধি দল বাংলাদেশে অবস্থানকালে সরকারি প্রতিনিধি, নির্বাচন-সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি, বিভিন্ন আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতা, সুশীল সমাজ ও গণমাধ্যমের প্রতিনিধিদের সাথে সাক্ষাৎ করে।
সূত্র : ইউএনবি

About Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • Click to Chat
  • Click to Chat
  • Click to Chat
  • Click to Chat