আন্দোলন এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে, সরকার পতনের বেশি দেরি নাই,ফরিদপুরে পথসভায় সেলিমা রহমান

0
Array

সরকার পতনের একদফা আন্দোলন প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিমা রহমান বলেছেন, আন্দোলন এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে। এই সরকারের পতনের বেশি দেরি নাই। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে আরেকটু এগিয়ে যেতে হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে ফরিদপুর রাজবাড়ী মোড়ে তৃতীয় পথসভায় এসব কথা বলেন তিনি। এরআগে সকালে রাজবাড়ী গোয়ালন্দ মোড়ে প্রথম পথসভা এবং রাজবাড়ী সদর থানার বসন্তপুর মাঠে দ্বিতীয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বেলা ১২টা ১৮ মিনিটে শরীয়তপুরের উদ্দেশে রোডমার্চের গাড়ি ছাড়ে। মুষলধারে বৃষ্টি উপেক্ষা করে হাজার হাজার নেতাকর্মীরা রোডমার্চে অংশ নিয়েছেন। সভাপতিত্ব করছেন রোডমার্চের দলনেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবেদীন ফারুক।

‘সরকারের পদত্যাগ, সংসদ বিলুপ্ত, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন এবং বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং একদফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে’ এই রোডমার্চের আয়োজন করে দলটি।

বেগম সেলিমা রহমান বলেন, ফ্যাসিস্ট সরকারের বিরুদ্ধে আমরা লড়াই করছি। আন্দোলন করছি। এই আন্দোলন এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে। এই সরকারের পতনের বেশি দেরি নাই।

ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে আরেকটু এগিয়ে যেতে হবে। এখন ডাক আসবে। সেই ডাকে সাড়া দিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই সরকারের পতন ঘটাবো আমরা। এই হোক আমাদের অঙ্গীকার।

তিনি বলেন, এই সরকার জোর করে দেশ চালাচ্ছে। গুম ও খুন, হত্যা, দুর্নীতি মধ্যে দিয়ে বিদেশে টাকা পাচার করছে। মানুষ না খেয়ে মরছে। তাই আজকে আমরা ঘুরে দাঁড়িয়েছি। বিএনপি আন্দোলনের জন্য রাজপথে নেমেছে।

সেলিমা রহমান বলেন, বেগম জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসা করতে না দিয়ে হত্যার প্রচেষ্টা চলছে। এদেশের মানুষ এটা মানতে পারে না। এই সরকারকে অবশ্যই পদত্যাগে বাধ্য করবো। জনগণ আজকে ঐক্যবদ্ধ। সরকারের পায়ের নিচে মাটি নাই। আর আমাদের আন্দোলনও চূড়ান্ত পর্যায়ে।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, দেশের মানুষ ও বিশ্বের গণতান্ত্রিক দেশগুলোও সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। সুষ্ঠু ভোট হলে ফরিদপুরে আওয়ামী লীগ ভোট পাবে? তাদের সঙ্গে কেউ নাই। দেশেও নাই আর বিদেশেও নাই।

১৩০ কিলোমিটার দীর্ঘ এ রোডমার্চের নেতৃত্ব দিচ্ছেন আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু। রোড মার্চটি রাজবাড়ী গোয়ালন্দ মোড় থেকে ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ ও মাদারীপুর হয়ে শরীয়তপুর স্টেডিয়ামে সমাবেশের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে।

রোডমার্চে রড দিয়ে ঘেরা জেল খানার আদলে তৈরি খাঁচার মধ্যে একটি শিশু বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মতো সাজগোজ করে বসে আছে। কর্মসূচিতে অংশ নেয়া সকল নেতাকর্মীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে শিশুটি।

এই রোডমার্চে বেশ কয়েকটি পথসভা করার কথা রয়েছে। এরমধ্যে ফরিদপুর নগরকান্দার তালমা মোড়, গোপালগঞ্জের মকসদপুরের বরইতলা, মাদারীপুরের মস্তফাপুর পথ সভা অনুষ্ঠিত হবে। এরপরে শরীয়তপুর স্টেডিয়ামে সমাবেশের মধ্যে দিয়ে এই কর্মসূচি শেষ হবে।

ইতিমধ্যে বিএনপি ও এর অঙ্গ-সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মীদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে রোডমার্চ। নেতাকর্মীরা ব্যানার, ফেস্টুনসহ খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে কর্মসূচিতে যোগ দিচ্ছেন। ট্রাক, মাইক্রোবাস ছাড়াও কয়েক শত মোটরসাইকেল নিয়ে যোগ দিয়েছেন নেতাকর্মীরা। মাথায় ব্যান্ড, ক্যাপ পড়ে, রং-বেরংয়ের গেঞ্জি গায়ে এবং হাতে জাতীয় ও দলীয় পতাকা নিয়ে হাজারো নেতাকর্মী রোডমার্চে অংশ নিয়েছেন। এসময় তারা সরকার বিরোধী বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

সরকার পতনে একদফার আন্দোলনের অংশ হিসেবে বর্তমানে ১৫ দিনের কর্মসূচি করছে বিএনপি। গত ১৯শে সেপ্টেম্বর শুরু হওয়া এ কর্মসূচি ৫ই অক্টোবর কুমিল্লা-ফেনী-মিরসরাই হয়ে চট্টগ্রাম পর্যন্ত রোডমার্চের মধ্য দিয়ে শেষ হবে। এরপর পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হতে পারে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

About Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • Click to Chat
  • Click to Chat
  • Click to Chat
  • Click to Chat