২৪ সচিবের মার্কিন কানেকশন

0
Array

বাংলাদেশে এই সময় ৮৭ জন সচিব রয়েছেন। এদের মধ্যে ১৮ জন সিনিয়র সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। চুক্তিতে থাকা এবং নিয়মিত এই সচিব গণের মধ্যে অন্তত ২৪ জনের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কোনো না কোনো রকম সম্পর্ক আছে। পাঁচটি বিষয় দিয়ে সম্পর্কের মাপকাঠি নির্ধারণ করা হচ্ছে।

১. তাদের সন্তান-সন্ততি বা স্ত্রী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে থাকেন অথবা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনা করেন।

২. তাদের খুব নিকট আত্মীয়রা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন।

৩. তারা নিজেরাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গ্রীন কার্ড নিয়েছেন বা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের বৈশ্বিক সম্পর্ক করেছেন।
৪. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তাদের সহায় সম্পত্তি বাড়ি ঘর ইত্যাদি রয়েছে (নামে অথবা বেনামে)

৫. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তারা ভিসা নিয়েছেন এবং নিয়মিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

এই রকম পাঁচটি ক্যাটাগরিতে সচিবদের ব্যাপারে একটি তথ্যানু সন্ধান করে দেখা গেছে। এদের মধ্যে ২৪ জনেরই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বিভিন্ন রকম যোগাযোগ রয়েছে। এদের মধ্যে অন্তত ৭ জন সচিব রয়েছেন যারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গ্রীন কার্ড ধারী। ৫ জন সচিবের সন্তানরা সেখানে লেখাপড়া করছেন অথবা লেখাপড়া করার পর স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। অন্তত ৪ জন সচিবের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নামে অথবা বেনামে সহায় সম্পত্তি রয়েছে। যেমন- বাড়ি ঘর ইত্যাদি। তবে যাদের সহায় সম্পত্তি রয়েছে তারা এই সহায় সম্পত্তির তথ্য গোপন করেছেন এবং এই ব্যাপারটি অস্বীকার করেছেন।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, যে ২৪ জন সচিবের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যোগাযোগ রয়েছে তারা বছরে অন্তত দুবার করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন গত তিন বছরের মধ্যে। এমনকি এদের মধ্যে অন্তত দুজন সচিব রয়েছেন যারা করোনার সময় দীর্ঘ ছুটি নিয়ে (তখন তারা অতিরিক্ত সচিব ছিলেন) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করেছেন। যাদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিভিন্ন ধরনের বিনিয়োগ বা ব্যবসা বাণিজ্য রয়েছে। তারা তাদের নিকট আত্মীয় অর্থাৎ যাদের মাধ্যমে তারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিনিয়োগ করেছেন তাদের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রাখেন এবং সেখানে নিয়মিত যোগাযোগ রাখেন।

বিভিন্ন তথ্যানু সন্ধান করে দেখা গেছে, শুধু সচিব পর্যায় এই ২৪ জনের বাইরেও প্রশাসনে অন্তত একশো জন রয়েছেন যারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বিভিন্নভাবে সম্পর্কিত। যাদের স্ত্রী, পুত্র, কন্যা অথবা নিকট আত্মীয়রা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করেন বা পরিবারের ঘনিষ্ঠ সদস্যরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করেন। এদের মাধ্যমেই এখন প্রশাসনে গ্রীন ধারীর সংখ্যা একশোরও বেশি। শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নয়, ইদানিং আমলাদের মধ্যে কানাডা, অস্ট্রেলিয়াতেও স্থায়ীভাবে ঠিকানা করার প্রবণতা বেড়েছে।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, অবসরপ্রাপ্ত সচিবদের মধ্যে এখন অন্তত ১৩ জন সচিব মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করেন এবং তারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গ্রীন কার্ড ধারী। অধিকাংশ সময় তারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করেন। এদের মধ্যে অন্তত ৬ জন স্থায়ীভাবে এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। কানাডাতেও অনেকেই নাগরিকত্ব নিয়েছেন অথবা স্থায়ী আবাসনের জন্য কার্ড নিয়েছেন। এরাও বছরের একটা বড় সময় কানাডাতে থাকেন। নতুন এবং অবসরপ্রাপ্ত এবং কর্মরত মিলিয়ে অন্তত ৮৭ জন আমলা রয়েছেন যারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডাতে বাড়ি ঘরের মালিক আছেন।

About Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • Click to Chat
  • Click to Chat
  • Click to Chat
  • Click to Chat